FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

একজন রহিমা

একজন রহিমা

*

রহিমা গ্রামের একজন সাধারণ কৃষক এর মেয়ে, রহিমাকে নিয়ে মা-বাবার অনেক স্বপ্ন, মেয়েকে তারা লেখা পড়া করাবে বড় স্কুল কলেজে পড়াবে,হ্যাঁ রহিমা সবে মাত্র কলেজ জীবনে পা রেখেছে।অনেক সুখেই চলছে তাঁর জীবন ।ঘরে যদিও ঠিকমত তিন বেলা খাবার নেই কিন্তু এই ছোট্ট কুড়ের ঘরে কোনো দিক দিয়ে ভালোবাসার অভাব নেই,
.
রহিমা ও তাঁর মা-বাবার মুখ উজ্জ্বল করেছে। কলেজের মাস্টারদের কাছে সব চেয়ে প্রিয় ছাত্রী রহিমা, আজ রহিমার এস,এইচ,সি রেজাল্ট দিয়েছে জি,পি ৫ পেয়ে পাস করেছে সে। রহিমার বাড়িতে খুশীর রোল থাকার কথা কিন্তু তাঁর পবর্তীতে এখন কান্নার রোল পড়ে আছে,
খুব গরীর ঘরের সন্তান বলে রহিমা দু'টা টিউশনি করাতো,এতে করে নিজের পড়া লেখার খরচ টা চলে যেতো,
.
অন্য দিনের মত রহিমা আজও ঠিক ছাত্রদের পড়া শেষ করে বাড়িতে ফির ছিলো,
ও হ্যাঁ রহিমা যে রাস্তায় বাড়িতে ফিরতো সেই খানে প্রায় এলাকার কিছু ছেলে ডিস্টার্ব করতো তাকে, এমন কি প্রেমের প্রস্থাব দিতো কিন্তু রহিমাকে কিন্তু এতে সে রাজি হয়নি,
.
-এই রহিমা এই দিখে আসো তো, (রিয়াজ) রিয়াজ এলাকার সবচেয়ে ধনী পরিবারের সন্তান ,বাপের অনেক টাকা। তাছাড়া বাপের এলাকাতে অন্য রকম সম্মান দেয় হয় , আর তাঁর বাপের সেই গরমে রিয়াজ রাস্তা ঘাটে নেশা করে মেয়েদের সাথে প্রতিনিয়ত ইফটিজিং করে,
-জ্বী, কিছু বলবেন কি.? (রহিমা)
-হুম
-জ্বী বলেন আমার আবার দ্রুত বাড়িতে যেতে হবে,
-আরে তোমার এত্ত তাঁরা কিসের ?
-আমি চলাম, (বলে রহিমা চলে গেল )
.
কিন্তু এইসব কথা বাড়িতে এসে বাবা মায়ের কাছে বলতো না কারণ তাঁরা গরিব তাঁদের কথা কেউ বিশ্বাস করবে না,
এই ভাবেই ছিল ছিলো কিন্তু রিয়াজ এর কর্যক্রম ক্রমাগত বাড়তে থাকলো তাই রহিমা কোনো দিক না পেয়ে মা-বাবার কাছে কথাটা বলে ,
রিয়াজ এর পরিতিস্থি দেখে তাঁরা রিয়াজ এর বাবার কাছে নালিশ করে কিন্তু তাঁরা উল্টা রহিমা এবং তাঁর মা-বাবাকে অপমান-অপদ্ধস্থ করে বাড়ি থেকে বাহির করে দেয়,
.
আজ পরীক্ষা রেজাল্ট আনার জন্য রহিমা কলেজে কিন্তু আসার সময় আবার রিয়াজ,

-ঐ রহিমা এই দিকে আসো, (রিয়াজ)
-রিয়াজ এর কথা শুনা মাত্রই ভয়ে কাপতে লাগল এবং দ্রুতত বাড়ির দিকে পা বাড়াল,
-কিন্তু রিয়াজ বাইক এ করে রহিমার সামনে গিয়ে তার পথ আটকায় এবং বিভিন্ন রকমের অপমান করে। শেষ পযর্ন্ত রিয়াজ রহিমার গাঁয়ে উড়না টাও রেখে দেয়া এবং অনেক উসকানি মূল্য কথা বলে,
.
ঐ অপমান সহ্য না করতে পেরে রহিমা নিজে আত্যাহত্যা করে,
যে মেয়েটা সারা দিন বাড়িতে হই চই করে বেড়াতো ,সারা ঘর আলোকিত করে রাখত,যার চোখে ছিলো হাজারো নতুন স্বপ্ন,
সেই স্বপ্ন গুলো নিমিশেই ধ্বংস করে দিলো একটি কাল বৈশাখী ঝড় এসে,
.
বিদ্রঃ- আমাদের সমাজে এমন হাজারো রহিমা আছে, যারা এই ভাবে প্রতি নিয়ত লাঞ্ছিত হচ্ছে,শেষ হয়ে যাচ্ছে নতুন একটি প্রতিভাবান জীবন...

*




0 Comments 80 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2019