FriendsDiary.NeT | Friends| Inbox | Chat
Home»Archive»

আমি ও আমার স্বপ্নের খালা।

আমি ও আমার স্বপ্নের খালা।

*

সময়টা ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯,, অনকেদিন অফলাইন থাকার পর হঠাৎ করেই একদিন এফডিতে ঘুরতে আসি। এর কারণ ও ছিলো।সেদিন ছিলো আমার জন্মদিন। অন্যবার অনেক ব্যস্ততার সাথে কাটে দিনটি। কিন্তু আমার এক ফ্রেন্ড নটরডেম কলেজে ভর্তি হওয়ায় সে ছিলো না সেবার। তাই সেবার কিছুই হয় নি। এফডিতে ঘুরতে এসে একটা সাউট আমার চোখে পড়ে। সাউটটা হলো হাগের স্নাইলি দিয়ে রোজেলিন আপুকে রেটরিক দার শুভ সন্ধ্যা জানানো। সত্যি বলতে সেদিন ও আমি একটা খালা পাবার স্বপ্ন দেখিনি৷ কারণ সেদিন ভেবেছিলাম এরা আসল খালা-ভাগ্নে। কিন্তু যেদিন জানতে পারি এরা আসল খালা ভাগ্নে না সেদিনই স্বপ্ন দেখে ফেললাম আমার ও এফডি তে এইরকম একটা খালা হবে।

কিন্তু অনেকবার ফিমেল অনলাইন ঘুরেও মনের মতো কোন খালা খুজে পাই নি। তাই কাওকে কাওকে নক দিয়ে বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করতাম সে আসলেই আমার মনের মতো খালা হতে পারবে কি না। যা বুঝলাম আমার স্বপ্নের খাল আমার স্বপ্নেই থেকে গেলো।

সময়টা এফডিসি ২ এর সময়। দেখতাম খালা ভাগ্নে ক্রিকেট নিয়ে ভালোয় সাউট করে। আমার তখন মাথায় আসলো ইস!!যদি আমার একটা খালা থাকলো তাহলে আমরাও এভাবে সাউট করতে পারতাম।

আমি এফডিসি২ এ তাই আমার সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করি অনেক ভালো খেলার। দুইটা আলাদা খাতা ও ছিলো এফডিসিসি ২ এর জন্য।আমার উদ্দেশ্য ছিলো ভালো খেলে যদি একটা মনের মতো খালা জুটে যায়। কিন্তু সর্বোচ্চ রান করার পর ও আমি খালা পাই নি।

আমি ছিলাম এসসি টিমে। আর শুনেছিলাম আমার মটকা মামা অনেকবার ছেকা খেয়েও নাকি হাল ছাড়ে নি। তাই আমি ও খালা না পেয়ে মোটে ও ভেঙে পড়ি নি। আমি আবার টূর্ণামেন্ট খেলা শুরু করলাম শুধুমাত্র একটা খালা পাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে।

কিন্তু ৩/৪ টা টূর্ণামেন্ট ভালো খেলেও খালা পাই নি। তাই মাঝে মাঝেই হতাশাগ্রস্ত হয়ে সাউট করতাম এটাই শেষ টূর্ণামেন্ট। আর খেলবো না।কিন্তু আমার মনে হতো টূর্ণামেন্ট খেলতে খেলতে একটা খালা পেয়ে যাবো। তাই এখনো অবসরে যাই নি।

টি এম এ যখন সেমিতে আর ফাইনালে এফডিসি ৩ তে ডাক মারলাম তখন আমার স্বপ্নে একটা খালা এসেছিলো। আমার কল্পনার খালা। সেই খালা বললো হতাশ হয়ো না। খালা পেতে গেলে অনেক ধৈর্য ধরতে হয়।

সেই স্বপ্নের খালার অনুপ্রেরণাতে আমি আবার কিছুটা ঘুরে দাড়ালাম।এফডিসিটি তে ২য় টপ স্কোরার হলাম। স্বপ্নের খালা আমাকে দিলো কিছু কুফার মন্ত্র। যেগুলা এসসি এর উপর প্রয়োগ করে মটকা মামার রাতের ঘুম হারাম করে দিলাম।

অনেকেই বলে রোজেলিন আপুকে সবাই খালা ডাকলেও আমি আপু ডাকি কেন? কারণ কোন কারণে সে যদি আমার স্বপ্নের খালা হয়ে যেত তাহলে রেটরিক দা অনেক কষ্ট পেতো। খাওয়া দাওয়া ও ছেড়ে দিতো প্রায়। দাদা আমার কাছের একজন মানুষ। তাই দাদাকে কষ্ট দেব না বলেই আগেই আপু বানিয়ে রেখেছি।

আমি জানতাম বিটি টিমে অনেক মেয়ে আছে। তাই মটকা মামা মীরজাফর উপাধি দেওয়া সত্ত্বেও আমি বিটিতে গেলাম শুধুমাত্র একটা খালা পাওয়ার জন্য। কিন্তু কষ্টের বিষয় এবার বিটিতে কোন মেয়ে নাই। খালার জন্য এসসি তে খেললাম না। তাও খালা বাস্তবে আসলো না। শুধু কল্পনায় থেকে গেলো। -scry-


এসব কারণে অনেক ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলাম।কিন্তু সেদিন যখন মোস্তাকিম ভাই বললো খালা পাওয়া অতো সহজ না। খালা পেতে হলে বনে জঙ্গলে ঘুরতে হয়।নোয়াখালী যেতে হয়। আরো কত কিছু করতে হয়। এগুলা শুনে আমি এখন আশাবাদী। আমি ও সারাদিন বনে বনে ঘুরবো। প্রতিদিন নোয়াখালী যাবো। তাও আমার জীবনের একমাত্র লক্ষ্য খালা আমি পাবোই।

স্বপ্নের খালার জন্য নিজের লেখা একটা কবিতা দিয়ে শেষ করি লেখা।

"হাটতে চাই অনন্তকাল মেঘাচ্ছন্ন আকাশে
খালার সাথে নির্জন রাস্তায় সতেজ বাতাসে
থামবে না আমার পথ চলা
যতক্ষণ রাস্তা থাকবে নির্জন,আকাশ থাকবে মেঘাচ্ছন্ন
আর খালা থাকবে আমার সাথে।"


চাইলে আরো বড় করতে পারতাম।কিন্তু এইটুকু লিখেই আমি আর কান্না থামাতে পারছি না। আরো লিখলে না জানি কি হতো।

*




37 Comments 623 Views
Comment

© FriendsDiary.NeT 2009- 2021